Eddie Beirnot is the Co-Founder and Managing Director of Care Nutrition. An age ago he came to Bangladesh from the United States after receiving a job offer. Noticing the lack of nutrition in various foods of the children here, he decided to start an organization providing nutritious food in this country.

May 28 is ‘World Nutrition Day’. On this occasion, in an interview given to Prothom Alo, his thoughts and initiative on nutritious baby food came up. Interviewed by Tarek Mahmood Nizami.

Prothom Alo: How did you come up with the idea of starting Care Nutrition in Bangladesh?

Eddie Beirnot: We started the Care Nutrition journey keeping in mind the two current trends in Bangladesh. First, the demand for premium packaged foods has grown considerably. So consumers want to buy food imported from abroad at domestic prices. Secondly, parents want food for children that is rich in nutrients and of quality and taste, which will contribute to the good health of the child. At the same time will make the child smart and strong. But there are not many such nutritious foods for children. We started the journey of Care Nutrition with the plan to supply baby food at affordable prices to meet that shortfall.

Prothom Alo: How do you ensure the quality of Care Nutrition products?

Eddie Beirnot: Our first priority is to maintain international standards of products. And to maintain the quality we have invested a lot of advanced machinery and technology in the factory. We are the only organization in Bangladesh to be certified to ISO 22000: 2018, the highest global standard for food production from domestic and foreign standard-setting bodies BSTI and SGS respectively. This achievement is possible because of the world-class lab in our factory managed by 10 food technologists, quality assurance experts, and nutritionists. Where every raw material, packaged food, and processed food is tested. This means that nothing that comes into our factory is marketed without being vetted through laboratory standards, which are more stringent than the BSTI and United States Food and Drug Administration standards.

Prothom Alo: May 28 ‘World Nutrition Day 2023’. What message do you want to give readers on this occasion?

Eddie Beirnot: The most important aspect of health is nutrition. Nutrition, like children’s education and lifestyle, is an integral part that parents, teachers, and policymakers must prioritize. Private organizations must work to create awareness about nutrition. At the same time, I think it is their responsibility to deliver nutritious products to consumers at affordable prices.

Care Nutrition believes that everyone has the right to nutritious food. We strive to create products that every child will love and every parent can trust. We are committed to playing a role in building a new generation in Bangladesh that is healthy, happy, and dreaming about the future.

ATN News also interviewed Care Nutrition co-founder and managing director Eddie Beirnot on the occasion of ‘World Nutrition Day’ on May 28. Along with the interview, they visited Care Nutrition’s factory and demonstrated the quality of all the products to the audience.

বাংলায় পড়ুনঃ

কেয়ার নিউট্রিশন-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এডি বেয়ারনট। এক যুগ আগে একটা চাকরির প্রস্তাব পেয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছিলেন বাংলাদেশে। এখানকার শিশুদের বিভিন্ন খাবারে পুষ্টির অভাব লক্ষ্য করে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এ দেশেই পুষ্টিকর খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান শুরু করার।

২৮ মে ‘বিশ্ব পুষ্টি দিবস’। এ উপলক্ষে প্রথম আলোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে উঠে আসে পুষ্টিকর শিশুখাদ্য নিয়ে তাঁর ভাবনা ও উদ্যোগের কথা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন তারেক মাহমুদ নিজামী

প্রথম আলো: বাংলাদেশে কেয়ার নিউট্রিশন-এর যাত্রা শুরু করার ভাবনাটা কীভাবে এল?

এডি বেয়ারনট: বাংলাদেশে চলমান দুটি ধারাকে মাথায় রেখে আমরা কেয়ার নিউট্রিশনের যাত্রা শুরু করেছি। প্রথমত, প্রিমিয়াম জাতের প্যাকেটজাত খাবারের চাহিদা বেশ বেড়েছে। তাই ভোক্তারা বিদেশ থেকে আমদানি করা খাবার দেশি দামে কিনতে চান। দ্বিতীয়ত, বাবা–মায়েরা পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ এবং গুণগত মান ও স্বাদের এমন ধরনের খাবার শিশুদের জন্য চান, যা শিশুর সুস্বাস্থ্য গঠনে ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে শিশুকে করে তুলবে স্মার্ট ও দৃঢ়। কিন্তু শিশুদের জন্য এমন পুষ্টিকর খাবার খুব বেশি নেই। সেই ঘাটতি মেটাতেই সাশ্রয়ী মূল্যে শিশুখাদ্য সরবরাহের পরিকল্পনা নিয়েই আমরা কেয়ার নিউট্রিশনের যাত্রা শুরু করি।

প্রথম আলো: আপনারা কীভাবে কেয়ার নিউট্রিশন-এর পণ্যগুলোর গুণগত মান নিশ্চিত করেন?

এডি বেয়ারনট: আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার হচ্ছে পণ্যের আন্তর্জাতিক মান রক্ষা করা। আর মান বজায় রাখতে আমরা কারখানায় অনেক উন্নতমানের যন্ত্র ও প্রযুক্তি বিনিয়োগ করেছি। আমরা বাংলাদেশের একমাত্র প্রতিষ্ঠান, যারা দেশি ও বিদেশি মান নির্ধারণী সংস্থা যথাক্রমে বিএসটিআই এবং এসজিএস থেকে  খাদ্য উৎপাদনের জন্য সর্বোচ্চ বৈশ্বিক মান আইএসও ২২০০০: ২০১৮ সনদপ্রাপ্ত। আর এই অর্জন সম্ভব হয়েছে আমাদের কারখানায় ১০ জন ফুড টেকনোলজিস্ট, কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স এক্সপার্ট এবং পুষ্টিবিদদের পরিচালনায় গঠিত বিশ্বমানের ল্যাবের কারণে। যেখানে প্রতিটি কাঁচামাল, প্যাকেটজাত খাবার এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। অর্থাৎ আমাদের কারখানায় আসা কোনো কিছুই ল্যাবরেটরির স্ট্যান্ডার্ডের মাধ্যমে যাচাই-বাছাই ছাড়া বাজারজাত হয় না, যা বিএসটিআই এবং ইউনাইটেড স্টেটস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মান নির্ধারণপ্রক্রিয়ার চেয়েও কঠিন।

প্রথম আলো: ২৮ মে ‘বিশ্ব পুষ্টি দিবস ২০২৩’। এ উপলক্ষে পাঠকদের কী বার্তা দিতে চান?

এডি বেয়ারনট: স্বাস্থ্যের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হচ্ছে পুষ্টি। শিশুদের শিক্ষা এবং লাইফস্টাইলের মতো পুষ্টিও একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ, যা বাবা-মা, শিক্ষক এবং নীতিনির্ধারকদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে অবশ্যই পুষ্টি সম্পর্কে সচেতনতা তৈরিতে কাজ করা দরকার। একই সঙ্গে সাশ্রয়ী মূল্যে পুষ্টিকর পণ্য ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়াও তাদের দায়িত্ব বলে আমি মনে করি।

কেয়ার নিউট্রিশন বিশ্বাস করে, প্রত্যেকেরই পুষ্টিকর খাবার গ্রহণের অধিকার রয়েছে। আমরা এমন পণ্য তৈরি করার চেষ্টা করেছি, যা প্রতিটি শিশু পছন্দ করবে এবং প্রতিটি বাবা-মা আস্থা রাখতে পারবেন। বাংলাদেশে সুস্থ, সুখী এবং ভবিষ্যৎ নিয়ে স্বপ্ন দেখা একটি নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলার অগ্রযাত্রায় ভূমিকা রাখতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

এছাড়াও ২৮ মে ‘বিশ্ব পুষ্টি দিবস’ উপলক্ষে কেয়ার নিউট্রিশনের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এডি বেয়ারনটের সাক্ষাৎকার নেয় এটিএন নিউজ। সাক্ষাৎকারের পাশাপাশি তারা কেয়ার নিউট্রিশনের ফ্যাক্টরি ভিজিট করেন এবং সকল পণ্যের গুণগত মান দর্শকদের মাঝে তুলে ধরেন।

Tags:

care nutrition

See all author post

Leave a Comment

Your email address will not be published.